পদানত জাতির মুক্তির ইতিহাস সর্বদাই লোহার কলম আর রক্তের কালি দিয়ে লেখা হয়েছে।

হিন্দুদের পরনির্ভর মানসিকতা কাটিয়ে উঠতে হবে। রাজ্য সরকার কী করছে? কেন্দ্র সরকার কী করছে? বিজেপি কী করছে? তৃণমূল কী করছে? ইত্যাদি প্রশ্নের অবশ্যই প্রয়োজন আছে। কিন্তু ওরা কিছু না করলে হিন্দু সমাজ অসহায়; এই মানসিকতা ঝেড়ে ফেলতে হবে।

এক সময় দেশ পরাধীন ছিল। তখন স্বাধীনতার জন্য সমাজকেই লড়াই করতে হয়েছিল। বিদেশী সরকারের দমনপীড়নকে তুচ্ছ করেও স্বাধীনতাকামী জনতা বিভিন্ন ভাবে এই লড়াই লড়েছিল। গান্ধীর বৃটিশ সরকার মুখাপেক্ষী আবেদন নিবেদনের নীতির পরিণাম এই স্বাধীনতা নয়। বিনয়-বাদল-দীনেশ, বাঘা যতীন, মাস্টারদা সূর্যসেনের পরাক্রম; যতীন দাস, প্রীতিলতাদের আত্মবলিদান; রাসবিহারী, সুভাষ বোসদের রণকৌশলের সামনে বৃটিশ সরকার মাথা নত করতে বাধ্য হয়েছিল, আমরা স্বাধীন হয়েছিলাম।

বাংলাদেশের কথা ছেড়ে দিন, আজ আমাদের দেশেও কি হিন্দুদের মানবিক অধিকার সুরক্ষিত? মুর্শিদাবাদ, মালদহ, উত্তর দিনাজপুর, নদীয়া, উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা প্রভৃতি জেলাগুলোর বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে হিন্দুদের সাথে কথা বলে দেখুন এইসব এলাকায় হিন্দুরা কতটা নাগরিক অধিকার অথবা মানবিক অধিকার ভোগ করে থাকে। এই অধিকার সুনিশ্চিত করবে কে? প্রকৃতির নিয়মে বীরভোগ্যা বসুন্ধরা। যদি আজও নিজেদের অধিকার আদায়ের জন্য সরকারের কাছে অসহায় আবেদন নিবেদনের গান্ধী প্রদর্শিত পথে চলার পরম্পরা আঁকড়ে ধরে বসে থাকি, তাহলে আমরা আবার মাটি হারাবো, নিজভৃমে পরবাসী হবো। মনে রাখতে হবে সরকার সবসময় শক্তিমানের সুরেই কথা বলে।

বাংলাদেশের হিন্দুরা ওখানকার মৌলবাদীদের পাল্টা মারতে শুরু করলেই ওখানে যা হত, সেটাকেই সিভিল ওয়ার বলা হত। এছাড়া অন্য কোনও রাস্তা কি আছে? আমি নিশ্চিত যে বাংলাদেশে যে সরকারই ক্ষমতায় থাকুক, হিন্দুদের উপর এই অত্যাচার বন্ধ করতে পারবে না। তাহলে বাংলাদেশের হিন্দুদের সামনে আজ বিকল্প কি কি? হয় লড়াই করে ভাগ্য পরীক্ষা করতে হবে, না হয় তিলে তিলে প্রতিদিন মরতে মরতে একদিন শেষ হয়ে যেতে হবে। বাংলাদেশের যেকোন হিন্দুর সাথে কথা বলে দেখুন, আমার কথা মিথ্যা নয়। এই বিকল্প কি শুধুমাত্র বাংলাদেশের হিন্দুদের জন্যই? একেবারেই না। যে কোনও দেশে জেহাদী মৌলবাদীদের সাথে অমুসলমান যারা যারা ঘর করছে, তাদের প্রত্যেকের সামনে এই দুটি মাত্র বিকল্পই আছে।

সময় থাকতে নিজেদের ভবিষ্যত নির্ধারণের দায়িত্ব আমরা যদি নিজেদের কাঁধে তুলে নিতে না পারি, তবে কেউ আমাদের রক্ষা করতে পারবে না। সরকারের প্রতি আমাদের বার্তা এটাই হওয়া উচিত- With you, without you, inspite of you- জেহাদী মৌলবাদের বিরুদ্ধে আমরা আমাদের এই লড়াই লড়বো। এই লড়াই আমরা শুরু করিনি, কুরুক্ষেত্রে পান্ডবদের মত আমরা রেসপন্ড করতে বাধ্য হচ্ছি মাত্র। বাংলাদেশে হিন্দুদের উপর যে ধারাবাহিক নির্যাতন চলছে তা শুধুমাত্র বাংলাদেশের হিন্দুদের সমস্যা নয়। আজ যদি প্রতিরোধ তৈরি করা না যায় তবে আজ বাংলাদেশে যা হচ্ছে, তা ই হবে পশ্চিমবঙ্গের হিন্দুদের ভবিষ্যত, অবশিষ্ট ভারতের হিন্দুদের ভবিষ্যত, সারা বিশ্বের সমস্ত অমুসলমানদের ভবিষ্যত।

হিন্দুদের যদি এই অন্যায়, অত্যাচার, অপমানের হাত থেকে মুক্তি পেতে হয়, ইতিহাস নতুন করে লিখতে হবে। আর পদানত জাতির মুক্তির ইতিহাস সর্বদাই লোহার কলম আর রক্তের কালি দিয়ে লেখা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s